1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. dbcjournal24@gmail.com : ডিবিসি জার্নাল ২৪ : ডিবিসি জার্নাল ২৪
  3. banglarmukh71@gmail.com : admin1 :
  4. : :
শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৭:২৫ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দেবিদ্বারে ড্রেজার ব্যবসায়ীর হামলায় সাংবাদিক আহত  বুড়িচংয়ে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মোহাম্মদ জসীম উদ্দিন ভোটের মাঠে এগিয়ে শিক্ষাবিদ অধ্যাপক মোঃ আমির হোসেন আর নেই কুমিল্লায় নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে দৈনিক মুক্ত খবরের ২১তম বর্ষ উদযাপিত দাউদকান্দিতে বিকেএ কুমিল্লা (প.) জেলার কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা বুড়িচংয়ে নারীকে ডেকে নিয়ে গলা কেটে হত্যা আটক ৩ এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের অভিনন্দন জানিয়েছেন বাংলাদেশ যুব অধিকার পরিষদ নেতা বুড়িচংয়ে যাকাত ও ছদাকাত ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে অসহায়ের মাঝে প্রকল্প বিতরণ বুড়িচংয়ে কৃষি শ্রমিক ইউনিয়নের র‍্যালী অনুষ্ঠিত সাত গ্রামের সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী এড. রেজাউল করিম

শীতের পোষাকের চাহিদা বেড়েছে কুমিল্লায়

  • আপডেট করা হয়েছে বুধবার, ২১ ডিসেম্বর, ২০২২
  • ১৬২ বার পড়া হয়েছে
  • কুমিল্লা প্রতিনিধি

শীত বাড়ার সাথে সাথে কুমিল্লায় গরম কাপড়ের চাহিদা বেড়েছে। বেচাকেনায় জমে উঠেছে ফুটপাত থেকে শুরু করে অভিজাত বিপনী বিতানগুলোতে। তবে ক্রেতারা বলছেন, শীতের পোষাকের দাম গতবারের তুলনায় অনেক বেশি। এতে করে অল্প আয়ের মানুষেরা পুরনো কাপড় কিংবা ফুটপাতের দোকানের দিকে ক্রেতারা ঝুঁকে পড়েছেন। ফুটপাতের দোকানগুলি থেকে নিম্নবিত্ত ও নিম্ন-মধ্যবিত্ত পরিবারের লোকজন শীতের কাপড় ক্রয় করছে। তবে ভিন্ন চিত্র দেখা গেছে বড় বড় শপিং মল এবং বিপনী বিতানগুলোতে। পরিবারের ছোট-বড় সদস্যদের সাথে নিয়ে পছন্দের পোষাক কিনে নিয়ে যাচ্ছেন মধ্যবিত্ত কিংবা উচ্চবিত্তরা।
জানা যায়, গত সোমবার কুমিল্লায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। এরপর থেকেই মূলত কুমিল্লায় শীতের প্রকোপ বাড়তে শুরু করেছে। শীতের কারণে ব্যাপক চাহিদা বেড়েছে গরম কাপড়ের। এ জন্য দোকানিরা কম মূল্যের কাপড়ের পসরা বসিয়েছে ফুটপাতে। কুমিল্লা শহরের কান্দিরপাড় রানির বাজার রোডে, রাজগঞ্জ চকবাজার রোডে, শহরের বিভিন্ন রাস্তার মোড়ে ভাসমান ব্যবসায়ী পুরনো কাপড়ের রমরমা ব্যবসা চলছে। সকাল থেকে অনেক রাত পর্যন্ত বিভিন্ন ধরনের কাপড় বিক্রি হচ্ছে। এসব কাপড় ব্যবসায়ীরা ঢাকা, চট্টগ্রাম থেকে আমদানী করে বিক্রি করছে। ব্যবসায়ী স্বপন জানায়, গত ২ বছরের তুলনায় এবছর বিক্রি কম। করোনার সময় কাস্টমার কমছিল কিন্তু বিক্রি ভাল ছিল। কিন্তু এবছর বিক্রি কম। গরম কাপড়ের দাম হালকা বাড়লেও আমরা আগের দামে বিক্রি করছি তারপরেও কাস্টমার পাচ্ছিনা। দামাদামি করে কিন্তু পরে নেয়না। মাঝে মাঝে বিক্রি হয় কিন্তু গত কয়েক বছরের তুলনায় কম।
রানীর বাজার রোডের ব্যবসায়ী বিল্লাল জানান, আমাদের কাছে দেড়শ থেকে ৪শ টাকা পর্যন্ত মূল্যের গরম কাপড় পাওয়া যায়। আগে যে গরম কাপড় ১শ টাকা দিয়ে কিনেছি এবছর তা ১শ দশ বা বিশ টাকা দিয়ে কিনে দেড়শ টাকা বিক্রি করছি। গত বছর ১শ টাকা দিয়ে কিনে যে দামে বিক্রি করেছি এবছর একই দামে বিক্রি করছি। কিন্তু তারপরেও বিক্রি কম। কারণ জানতে চাইলে জানায়, বিশে^ আর্থিক সমস্যার কারণে হয়তো এমনটা হয়েছে। মানুষের আয় কমে যাওয়া খরচ বেড়ে যাওয়ায় এখন নিম্ন বিত্ত ও নিম্ন মধ্য বিত্তরা গরম কাপড়ের চাহিদা কমিয়ে দিয়েছেন। অনেকে পুরনো কাপড় দিয়ে শীত কাটিয়ে দিচ্ছেন।
রাজগঞ্জের ব্যবসায়ী হারুন মিয়া জানান, ফুটপাতের গরম কাপড় গুলো পুরাতন উন্নত মানের কম মুল্যে পাওয়া যায়। ১২শ টাকার গরম কাপড় মাত্র ২শ টাকায় পাওয়া যায়। এসব দোকানগুলিতে বেচা বিক্রি বেশি এবং জমে উঠেছে। একদিকে ক্রেতারা কম মূল্যে সহজে শীতের কাপড় পাচ্ছেন, অন্যদিকে বিক্রেতারাও লাভের মুখ দেখছেন।
কুমিল্লা শহরের কান্দিরপাড়ে অবস্থিত টপটেন মার্ট কুমিল্লা শাখার শাখা ব্যবস্থাপক মোর্শেদ আলম জানান, দিন দিন শীতের কাপড়ের চাহিদা বাড়ছে। অনেকে দামি খুজে। মধ্যম আয়ের মানুষেরা একটু সাশ্রয়ী মূল্যের খুজে। যারা সৌখিন তারা আমাদের এখানে বেটার কোয়ালিটি খুজে। গত বছরের চেয়ে এ বছর বিক্রি ভাল। মানুষের ক্রয় ক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে। সৌখিন মানুষেরা দশটাকা বেশি ভাল মানের গরম কাপড় খুজে। ইমপোর্ট আইটেমের প্রতি একটা শ্রেণীর মানুষের আগ্রহ বেশি।

শেয়ার করুন

কমেন্ট করুন

আরো সংবাদ পড়ুন